করো’নায় মৃ’ত্যুর আগে ফেসবুকে লিখলেন চিকিৎসক ‘দেহের মৃ’ত্যু হয়, আত্মা’র নয়’

যতদিন যাচ্ছে অবস্থা তত ভ’য়ানক হয়ে উঠছে। সর্বকালের সমস্ত রেকর্ড ছাপিয়ে এখন ভা’রতে দৈনিক আ’ক্রা'ন্তের সংখ্যা প্রায় তিন লাখ ছুঁইছুঁই। তার মধ্যে সবচেয়ে খা’রাপ অবস্থা দিল্লি আর মহারা'ষ্ট্রের। করো’’নার দ্বিতীয় ঢেউয়ে এখন টালমাটাল ভা’রত। হাসপাতা’লে বেড নেই, চিকিৎসক, নার্সরাও আ’ক্রা'ন্ত হচ্ছেন, অক্সিজেনের অভাব, শ্মশানে নিভছে না আ’গু'ন, কবরস্থানে মৃ'’তদে'হ রাখার জায়গা নেই, বিভীষিকাময় পরিস্থিতি চারিদিকে।

এর মধ্যেই ভা’রতের বহু চিকিৎসক, নার্স, সেবাকর্মীরা করো’’নায় আ’ক্রা'ন্ত হচ্ছেন। দিনের পর দিন করো’’নারোগীদের সঙ্গে থাকতে থাকতে তাঁদের শরীরেও বাসা বাঁধছে এই ভাই’রাস। কেউ লড়াইয়ে জয়লাভ করছেন, কেউ পারছেন না। অকালেই চলে যাচ্ছে পৃথিবী ছেড়ে। তেমনই কভিডে প্রা’ণ হারালেন মুম্বাইয়ের বিশি'ষ্ট চিকিৎসক ৫১ বছরের ড. মণীষা যাদব। সেওরি টিবি হাসপাতা’লের সিনিয়র মেডিক্যাল অফিসার ছিলেন তিনি।

করো’’নায় আ’ক্রা'ন্ত হয়ে কিছুদিন আগে হাসপাতা’লে ভর্তি হযেছিলেন তিনি। কিন্তু অবস্থা প্রতিদিন একটু একটু করে খা’রাপ হচ্ছিল। এরপর গতকাল ফেসবুকে তিনি একটি পোস্ট দেন। সম্ভবত নিজের সময় ফুরিয়ে আসছে বুঝতে পেরেই কিছু কথা শেয়ার করেছিলেন সোশ্যাল মিডিয়া হ্যান্ডেলে।

ড. মণীষা লেখেন, ‘সম্ভবত এটাই আমা’র জীবনের শেষ সকাল। আর কখনও এখানে আপনাদের সঙ্গে দেখা হবে না। সকলে নিজেদের যত্ন নেবেন। দে'হের মৃ'’ত্যু হয়, কিন্তু আত্মা’র নয়। আত্মা অম’র’।

Facebook Comments
Back to top button