ফোনালাপ ফাঁ’স করে ব্যক্তিগত অধিকার ক্ষু’ণ্ন করা হয়েছে : মামুনুল

হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হক বলেছেন, ইসলামে চারটি বিয়ের অনুমোদন দেয়া হয়েছে। দেশের আইনেও একাধিক বিয়েতে বাধা নেই। কাজেই আমি দ্বিতীয় বিয়ে করেছি এতে কার কী? আমি যদি স্ত্রীদের কোনো অধিকার থেকে বঞ্চিত করে থাকি, তবে আমা'র বিরু'দ্ধে পরিবার অ'ভিযোগ দিতে পারে। কিন্তু আজ পর্যন্ত কেউ কি সেরকম কিছু দেখাতে পারবে? তিনি আরও বলেন, ফোনালাপ ফাঁ'স করে আমা'র ব্যক্তিগত অধিকার ক্ষুণ্ন করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৮ এপ্রিল) এক ফেসবুক লাইভে এসে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, আমা'র স্ত্রীর সঙ্গে আমি কী বলবো না বলবো সেটা আমা'র ব্যক্তিগত ব্যাপার। কিন্তু ফোনালাপ ফাঁ'স করে আমা'র ব্যক্তিগত অধিকার ক্ষুণ্ন করা হয়েছে। এটি যেমন দেশের আইনেও অ’পরাধ তেমনি ইসলামী বিধানেও চরম গু'নাহর কাজ। সুতরাং আমা'র ব্যক্তিগত ফোনালাপ যারা ফাঁ'স করেছে তাদের বিরু'দ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেব।

মামুনুল আরও বলেন, যেভাবে একের পর এক মানুষের ব্যক্তিগত ফোনালাপ ফাঁ'স করা হচ্ছে, এটি দেশের জন্য ভালো কিছু বয়ে আনবে না। মাওলানা রফিকুল ইসলামকে গ্রে'ফতার করে তার নামেও অ’পবাদ দেয়া হয়েছে। এই যে এতগু'লো ফোনালাপ ফাঁ'স করা হলো তাতে কি প্রমাণ মিলেছে যে, সে আমা'র বিবাহিতা স্ত্রী নয়? অথচ শুধু শুধু আমা'র একান্ত ব্যক্তিগত কথাগু'লো কোন উদ্দেশ্যে ফাঁ'স করা হলো?

‘সেদিন নারায়ণগঞ্জের রয়েল রিসোর্টে যে ঘটনা ঘটেছে সেটি নিয়ে প্রশ্ন করা হয়েছে যে, আমি কেন এই পরিস্থিতিতে রিসোর্টে গেলাম। হ্যাঁ আমি স্বীকার করছি যে, এমন অ'সাবধানতাবশত সেখানে আমা'র যাওয়া সমীচীন হয়নি। আমি জানতাম না যে দেশের মানুষের ব্যক্তিগত নিরাপ'ত্তা চরমভাবে ভেঙে পড়েছে। স'ন্ত্রাসীরা আমা'র চরিত্রহরণের উদ্দেশ্যে পরিকল্পিতভাবে এ ঘটনা ঘটিয়েছে।’

Facebook Comments
Back to top button