ফি দিতে না পারায় প্রেসক্রিপশনে ওষুধ লিখে কেটে দিলেন চিকিৎসক

দাবিমতো ফি দিতে না পারায় দরিদ্র, অ’সহায় বৃ’'দ্ধাকে প্রেসক্রিপশনে লেখা ওষুধের নাম কে’টে দেওয়ার অ’ভিযোগ উঠল চিকিৎসকের বিরু’'দ্ধে। অমান’'বিক এই ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব বর্ধমানের কালনায়। অ’ভিযুক্ত চিকিৎসকের নাম জ্যোতির্ময় দাস। অ’ভিযুক্ত চিকিৎসক কালনা মহকুমা হাসপাতালের প্রাক্তন চিকিত্সক।

জানা গিয়েছে, বেশ কয়েক মাস ধরেই মাথা ও ঘাড়ের যন্ত্রণায় ভুগছিলেন কালনার নান্দাই গ্রামের বৃ’'দ্ধা মালতী দেবনাথ। কিছুতেই সমস্যা মিটছিল না। একমাত্র রোজগেরে ছেলে কর্মসূত্রে মুম্বইয়ে থাকেন। ছেলের স্ত্রী ও নাতনিকে নিয়ে গ্রামের বাড়িতে থাকেন অ’সুস্থ মালতী দেবী।

এরপর গত ৪ ফেব্রুয়ারি স্থানীয় বাসি’ন্দাদের সাহায্যে কালনা মহকুমা হাসপাতালের প্রাক্তন চিকিৎসক জ্যোতির্ময় দাসের চেম্বারে দেখাতে যান তিনি।

সেদিন চিকিৎসককে তাঁর ফি মিটিয়ে দিয়েছিলেন মালতী দেবী। এরপর চিকিত্সকের নির্দেশমত বেশ কিছু পরীক্ষা-নিরীক্ষা করান তিনি। তারপর ১৩ ফেব্রুয়ারি মালতী দেবীর রিপোর্ট দেখাতে ফের জ্যোতির্ময় দাসের চেম্বারে যান তাঁর এক প্রতিবেশী। রিপোর্টে জানা যায়, মালতী দেবী ব্রেন স্ট্রোক ও স্পন্ডাইলাইটিসে আ’ক্রা'’ন্ত। সেইমতো প্রেসক্রিপশনে বেশ কিছু ওষুধ লেখেন চিকিৎসক জ্যোতির্ময় দাস।

অ’ভিযোগ, এরপরই তাঁর দাবি মত ফি দিতে না পারলে, প্রেসক্রিপশনে লেখা ওষুধের নাম কে’টে দেন চিকিৎসক জ্যোতির্ময় দাস। এই অমান’'বিক ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। এদিকে এই ঘটনার পর থেকেই এলাকা ছেড়ে বেপাত্তা চিকিৎসক জ্যোর্তিময় দাস।

Facebook Comments
Back to top button