দুর্নী’তি করিনি, এখনও স্ব’চ্ছ আছি : কবিতা খানম

নির্বাচন কমিশনকে (ইসি) বিতর্কিত করতেই প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও অন্যান্য নির্বাচন কমিশনারের বিরু'দ্ধে দুর্নীতির অ'ভিযোগ করা হয়েছে বলে দাবি করেন নির্বাচন কমিশনার কবিতা খানম।

তিনি বলেন, ‘আমা'দের (নির্বাচন কমিশনার) নন, প্রতিষ্ঠানকে বিতর্কিত করতেই কেউ কেউ বিভিন্ন অ'ভিযোগ করছেন।’

বৃহস্পতিবার (৪ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীর আগারগাঁওয়ের নির্বাচন ভবনে নিজ কার্যালয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

সম্প্রতি দেশের বিশি'ষ্ট ৪২ নাগরিক নির্বাচন কমিশনের দুর্নীতি তুলে ধরে রা'ষ্ট্রপতির কাছে দু’দফা চিঠি দিয়েছেন। এছাড়া সুপ্রিম কোর্টের বিএনপিপন্থী ১০১ আইনজীবী নির্বাচন কমিশনারদের বিরু'দ্ধে জুডিশিয়াল ব্যবস্থা গ্রহণে পদ'ক্ষেপের দাবি জানিয়ে রা'ষ্ট্রপতিকে চিঠি দিয়েছেন। এর প্রেক্ষিতে কবিতা খানম এসব কথা বলেন।

নির্বাচন কমিশনার কবিতা খানম বলেন, ‘আমর'া এখানে (ইসিতে) যারা দায়িত্বে আছি, প্রত্যেকেই ৩০-৩১ বছর বিভিন্ন দফতরে চাকরি করে এসেছি। আগের কর্মস্থলে যেভাবে স্বচ্ছতার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করে এসেছি, এখানেও আমর'া সেভাবেই স্বচ্ছ আছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমর'া কেউ-ই কিন্তু তখন জানতাম না যে, কমিশনার হিসেবে যোগ দেব। যারা জীবনে স্বচ্ছ থেকেছি, তারা মাত্র পাঁচ বছরের জন্য এখানে দায়িত্ব নিয়ে নিশ্চয় নিজেদের বিতর্কিত করব না।’

পদ'ত্যাগের দাবি জানিয়ে আইনজীবীদের দেয়া চিঠি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘যেহেতু রা'ষ্ট্রপতির কাছে অ'ভিযোগ করেছেন। তাই এ ব্যাপারে আমা'র কিছু বলার নেই। প্র'শিক্ষণ যখন থেকে চলছে, তখন থেকেই প্র'শিক্ষণার্থীদের সম্মানি দেয়া হচ্ছে। এখনও দেয়া হয়। এটা কমিশন থেকে অনুমোদনপ্রা'প্ত ।’

একজন কমিশনার বলেছেন, নির্বাচনে অনিয়ম হয়েছে- এ প্রশ্নের জবাবে কবিতা খানম বলেন, ‘এ ব্যাপারে তার কথার বিরু'দ্ধে আমি কোনো মন্তব্য করতে চাই না।’

নির্বাচন কমিশনের প্র'শিক্ষণের ব্যয় সংক্রা'ন্ত অডিট আপ'ত্তির বি'ষয়ে তিনি বলেন, ‘অডিট আপ'ত্তি প্রত্যেকটা প্রতিষ্ঠানেই আসতে পারে, এটা দুর্নীতি নয়। আমি যে খাতে খরচ করেছি, আমি টাকা'টা সঠিকভাবে খরচ করেছি কি-না, সেজন্যই অডিট হয়।’

স্থানীয় সরকার নির্বাচন প্রসঙ্গে কবিতা খানম বলেন, ‘স্থানীয় সরকার নির্বাচনে কিছু কিছু সহিং'সতা হচ্ছে, এজন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনী সচে'ষ্ট। তবে আগের তুলনায় সহিং'সতা অনেকটা কম। নির্বাচনের পরিস্থিতি যাতে ব্যা'হত না হয়, এজন্য সব ধরনের পদ'ক্ষেপ আমর'া নিয়েছি। প্রার্থীরা যদি আইনের প্রতি শ্র'দ্ধাশীল হয় তাহলে নির্বাচনের পরিবেশটা ভালো থাকবে।’

ইসি নির্বাচনের কোনো ঘটনা ত'দন্ত করেছে কি-না সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, অবশ্যই ইসি প্রত্যেকটা অ'ভিযোগ ত'দন্ত করেছে। কিছু কিছু বি'ষয় থাকে ইসির এখতিয়ারের বাইরে, সেগু'লো সম্পর্কে আমর'া পরামর'্শ দিয়েছি। গত ৩০ জানুয়ারি পৌরসভা নির্বাচনে যেখানে সহিং'সতার ঘটনা ঘটেছে, সেসব কেন্দ্রে ভোট স্থগিত করেছি।’

প্রশাসনের বিরু'দ্ধে অ'ভিযোগ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, পু'লিশ প্রশাসন ইসির পক্ষে মাঠ পর্যায়ে কাজ করেন। সুনির্দি'ষ্টভাবে কোনো অ'ভিযোগ যদি আমা'দের কাছে আসে, তখন আমর'া ব্যবস্থা নিতে পারব। রিটার্নিং অফিসারের কাছে যখন একটি অ'ভিযোগ আসে তখন সে অ'ভিযোগটি ত'দন্ত করেন এবং সেগু'লো তিনি ত'দন্ত করে আমা'দের কাছে প্রতিবেদন দাখিল করেন। ফৌজদারি অ’পরাধ হিসেবে যে অ'ভিযোগগু'লো আমা'দের কাছে আসে সেগু'লো থা'নায় মাম'লার জন্য দেয়া হয়।

ভোটের মাঠ আপনাদের নিয়ন্ত্রণে থাকে কিনা- এমন প্রশ্নের জবাবে এ নির্বাচন কমিশনার বলেন, ‘ভোটের মাঠে আমর'া অবশ্য থাকি না। কিন্তু আমর'া গণমাধ্যমের খবর দেখি। যে ক্ষেত্রগু'লোতে আমা'দের কাছে সমস্যা বলে মনে হয়, সেখানে আমর'া তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেই।’

Facebook Comments
Back to top button