ঘোড়ায় চড়ে কনের বাড়িতে গিয়ে নববধূকে নিয়ে ফিরেছেন পালকিতে করে

বিয়ের দিনটি স্মর'নীয় করে রাখতে ঘোড়ায় চড়ে বিয়ে করতে যাওয়ার ইচ্ছে ছিল আশরাফুল আনোয়ার রোজেনের। আরও ইচ্ছে ছিল বউ নিয়ে ফিরবেন পালকিতে করে। সে ইচ্ছা পূরণ হয়েছে রোজেনের। লাল সেরোয়ানি পরে ঘোড়ায় চড়ে কনের বাড়িতে গিয়ে নববধূকে নিয়ে ফিরেছেন পালকিতে করে।

শুক্রবার (২২ জানুয়ারি) 'বিকেলে কিশোরগঞ্জের পাকুন্দিয়া উপজে'লার চণ্ডি পাশা ইউনিয়নের কোদালিয়া গ্রামে এভাবে বিয়ে অনুষ্ঠিত হয়।

উপজে'লার চণ্ডি পাশা ইউনিয়নের কোদালিয়া মাস্টার বাড়ি গ্রামের জাকির হোসেনের ছেলে আশরাফুল আনোয়ার রোজেন। তিনি যুক্তরাজ্য ভিত্তিক একটি মানবাধিকার সংস্থায় কাজ করেন।

শুক্রবার পারিবারিকভাবে একই ইউনিয়নের ঘাগড়া গ্রামে বিয়ে করেন তিনি। উভয় পরিবার রোজেনের শখ পূরণে এবং বিলু'প্ত প্রায় গ্রামীণ সংস্কৃতিকে ধরে রাখতে ব্যতিক্রমী এ বিয়ের আয়োজন করেন। কনে ঘাগড়া গ্রামের ড. ফরিদ আহম্ম'দ সৌবহানীর কন্যা নাবিলা সৌবহানী। তিনি ঢাকার একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করছেন।

ঘোড়ায় চড়া বর দেখতে ও বিভিন্ন জাতের ফুল দিয়ে সাজানো গ্রামীণ পালকিতে বউ দেখতে শতশত উৎসুক নারী-পু’রুষ ও শিশু বিয়ে বাড়িতে ভিড় জমান। শুধু তাই নয়, ঘোড়া-পালকির বিয়ে এখন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল।

এমন আয়োজন করতে পেরে মহাখুশি বর আশরাফুল আনোয়ার রোজেন। তিনি বলেন, শখ থেকেই এমন আয়োজন। বিয়ের দিনটিকে স্মর'ণীয় করে রাখতেই ঘোড়া-পালকিতে বিয়ে। শখের পাশাপাশি গ্রামীণ সংস্কৃতি ধরে রাখতেই ব্যতিক্রমী এ আয়োজন। দাম্পত্য জীবনে যেন সুখের হয় সেজন্য তিনি সকলের কাছে দোয়া চেয়েছেন।

Facebook Comments
Back to top button