দেড় বছর আগে ফেলে গেছেন স্বামী, পেটের দায়ে রিকশা নিয়ে রাস্তায় শাবানা

ক’রো’নাভা’ই’রা’সের দ্বিতীয় ঢেউয়ের সং’ক্র’মণ রোধে দেশে চলছে স’র্বাত্ম’ক ল’কডা’উন। দ্বিতীয় দফার এ ল’কডা’উনে ঘরে বসে না থেকে মোটরচালিত রিকশা নিয়ে রাস্তায় বেরিয়ে পড়েছেন শাবানা বেগম (২৭)। দেড় বছর আগে সন্তানসহ শাবানাকে ফেলে রেখে গেছেন তার স্বামী। খোঁজ-খবর নেন না স্ত্রী ও সন্তানের। অন্যদিকে শাবানার মায়ের খোঁজ-খবর রাখেন না তার বড় ভাই। তাই মা ও সন্তানের খাবার যোগাতে রিকশাচালকের পেশা বেছে নিয়েছেন শাবানা।

বৃহস্পতিবার (২২ এপ্রিল) 'বিকেলে মিরপুর ১০ নম্বর গোলচত্বর এলাকায় তাকে রিকশা চালাতে দেখা যায়। তিনি জানান, ল’কডা’উনের প্রথম দুই দিন রিকশা নিয়ে রাস্তায় নামেননি। দুই দিন অভু’ক্ত থেকে রোজা রেখেছেন। ‘পেট তো আর ল’কডা’উন বোঝে না’—ক্ষুধার জ্বা'’লায় বা’ধ্য হয়ে লকডাউনেও রিকশা নিয়ে রাস্তায় নেমেছেন বলে জানান শাবানা।

নারী হিসেবে রিকশাচালকের পেশাগত প্রতি’বন্ধকতা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘পাড়াপ্রতিবেশী তো অনেক কথাই বলে। মানুষের কথা শুনলে তো আর আমা’র জীবন চলব না। পেটে ভাত আসব না। আমা’র কাজ আমা’রে করতে হবে। অন্য কেউ তো আর করে দেবে না। তবে রাস্তায় আমাকে কেউ কিছু কয় না। ’

এক বছর যাবত মোটরচালিত রিকশা চালান শাবান। আয়-রোজগার কেমন হয় জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘৪০০ থেকে ৫০০ টাকা প্রতিদিন রোজগার করি। স'প্ত াহে ৩ হাজার টাকার কিস্তি দিতে হয়। কিস্তির টাকা দেওয়ার পর চলতে খুব ক’'ষ্ট হয়। পরিবারে কে কে আছে জানতে চাইলে শাবানা বলেন, ‘মা আর ৪ বছরের একটা ছে’লে। স্বামী দেড় বছর আগে চইলা যায়। কোনো খোঁজ-খবরও নেয় না। মনে হয় আবার বিয়ে করছে! আমা’র বড় ভাইও মায়ের খবর লয় না। ছে’লে আর মায়ের খাবার যোগাইতে রিকশা নিয়া রাস্তায় নামছি। ’

Facebook Comments
Back to top button