কাবা শরিফে প্রথম নারী নিরাপত্তা রক্ষী নিয়োগ ‍দিলো সৌদি

মসজিদুল হারাম তথা কাবা শরিফে নিরাপ'ত্তা রক্ষী হিসেবে নারীদের নিয়োগ দিয়েছে সৌদি। দেশটিতে এই প্রথম হজ ও ওমরাহ পালনকরীদের শৃঙ্খলা ও সুরক্ষায় দায়িত্ব পালন করতে এ উদ্যোগ গ্রহণ করেছে সৌদি স্বরা'ষ্ট্র মন্ত্রণালয়। খবর সিয়াসাত ডটকম।

গত সোমবার সৌদি স্বরা'ষ্ট্র মন্ত্রণালয় নিজস্ব টুইটার অ্যাকাউন্টে কাবা শরিফে নারী নিরাপ'ত্তা রক্ষীদের দায়িত্ব পালনের ছবি প্রকাশ করেছে। টুইটার ক'র্তৃপক্ষ যে দুইটি ছবি প্রকাশ করেছে, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তা ব্যাপকভাবে শেয়ার হয়েছে।

টুইটারে দেয়া ছবি দেখা যায়, ইউনিফর্ম পরিহিত নারী সদস্য দাঁড়িয়ে ডিউটি পালন করছে। পাশ দিয়ে অতিক্রম করছে এক ওমরাহ পালনকারী। ছবির ক্যাপশনে লেখা রয়েছে- من_الميدان ، أمن الحج والعمرة”” তথা ‘মাঠ থেকে হজ ও ওমরায় নিরাপ'ত্তারক্ষী’। আর নারী নিরাপ'ত্তা রক্ষীদের বাহুতে যে ব্যাজ রয়েছে তাতে লেখা আছে- “أمن الحج والعمرة” অর্থাৎ ‘হজ ও ওমরার নিরাপ'ত্তারক্ষী’।

সৌদি আরবের স্বরা'ষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও সুরক্ষা বাহিনী আল্লাহর ঘর জিয়ারতকারী এবং হাজিদের সুরক্ষা প্রদানের জন্য প্রথমবারের মতো নারী পুলিশ মোতায়েন করেছে। গত বছরও সৌদি আরব মসজিদে হারামের বিভিন্ন কাজে ১৫০০ নারী কর্মী নিয়োগ দিয়েছে।

দেশটির ক্রা'উন প্রিন্স মোহাম্ম'দ বিন সালমানের গৃহীত ভিশন ২০৩০ বাস্তবায়নের অংশ এটি। এ ভিশনে নারীদের জন্য অনেক নতুন নতুন কর্মক্ষেত্র তৈরির পরিকল্পনা রয়েছে। সৌদি সেনাবাহিনী ও সশস্ত্র বাহিনীতে নারীদের যোগদানের অনুমতিও এ পরিকল্পনার একটি।

সৌদি আরবের ক্রা'উন প্রিন্স মোহাম্ম'দ বিন সালমান সেদেশের নারীদের কর্মক্ষেত্র তৈরি ও স্বাধীনতাদিতে স্বামী বা বাবার সম্মতি ছাড়াই গাড়ি চালানো, খেলাধুলায় অংশগ্রহণ, ভ্রমণে যাওয়া, চাকরি করা এবং ব্যক্তিগত ব্যবসা চালু করার জন্য সরকারী আইনও পাস করেছে।

উল্লেখ্য, কাবা শরিফে নারী নিরাপ'ত্তা রক্ষী নিয়োগে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রশংসা ও নিন্দা জানিয়েছে অনেকে। কেউ কেউ মসজিদুল হারামের সুরক্ষা ও নিরাপ'ত্তা বজায় রাখার জন্য নারী পুলিশের উপস্থিতির প্রশংসা করেছেন। যুক্তি হিসেবে তারা নারী হজ ও ওমরাহ পালনকারীদের সুরক্ষার জন্য নারী নিরাপ'ত্তা রক্ষীর প্রয়োজনীয়তার কথা ব্যক্ত করেছেন। তবে কিছু ব্যবহারকারী এই পদ'ক্ষেপের সমালোচনা করে বলেছেন, মসজিদুল হারামের অভ্যন্তরে সামরিক ইউনিফর্মে নারী নিরাপ'ত্তা রক্ষীদের উপস্থিতি অনুপযুক্ত।

Facebook Comments
Back to top button