‘বাবা স্ট্রোক করেছে, হাসপাতালে ২ ঘণ্টা ঘুরেও চিকিৎসা পেলাম না’

সম্ভাব্য স্ট্রোক করা মো. আবুল কাশেম নামে ষাটোর্ধ এক রোগীকে জরুরি চিকিৎসা না দেয়ার অভিযোগ উঠেছে শ’হীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বিরু'দ্ধে।বুধবার (২১ এপ্রিল) দুই ঘণ্টা অ’পেক্ষা করে চিকিৎসা না করাতে পেরে সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল থেকে রোগীর স্বজনরা তাকে অন্য আরেকটি হাসপাতালে নিয়ে গেছেন।

মেডিকেলের জরুরি বিভাগের সামনে দাঁড়িয়ে দেখা যায়, রোগী আবুল কাশেমকে স্টেচারে করে হাসপাতাল থেকে বের করা হচ্ছিল। রোগীর চেত'না নেই। অ্যাম্বুলেন্সে তোলা পর্যন্ত কেবল একবার মুখ নাড়াতে দেখা যায় রোগীর। সঙ্গে থাকা রোগীর স্বজনরা কান্নাকাটি করছিলেন।

কাঁদতে কাঁদতে রোগীর সঙ্গে থাকা এক নারী বলেন, ‘কাল রাত ১২টায় হঠাৎ হাত-পা খিচতে খিচতে অজ্ঞান হয়ে গেছে। ডাক্তাররা চিকিৎসা করায় না।’

রোগীর ছেলে রাশেদুল ইসলাম বলেন, ‘আমার আব্বা রাত ১২টার সময় স্টোক করছে। খাওয়া-দাওয়া কইরা রাতে শুইছে, তারপর হঠাৎ স্টোক করছে। প্রথমে আমর'া বুঝতে পারি নাই। পরে ওখানকার ডাক্তাররা বলছে, স্টোক করছে। উনাকে সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে নিয়ে যান।’

তিনি বলেন, ‘এখানে আসলাম। ২০ মিনিট ঘুরলাম। তারপর টিকিট কাটলাম। ফালাই রাখছে। বলে, সিট নাই। সিট না পাওয়া পর্যন্ত আপনাদেরকে চিকিৎসা দেব না। এক হাজার টাকা ঘু'ষ দিয়া সিট নিলাম। এহন কইতাছে করোনা পরীক্ষা করে নিয়ে আসেন। করো’না পরীক্ষা করার জন্য উনাদেরকে বললাম। তারা বলল, আগামীকাল সকাল ১০টা থেকে ১২টার মধ্যে আসবেন। সিরিয়াল দেবেন। তারপর পরীক্ষা করবো, এরপরে চিকিৎসা দেব।’

Facebook Comments
Back to top button