করোনা নির্মূল নিয়ে দারুণ সুখবর দিল গবেষকরা!

ম’হামা’রি করো’’না ভাই’রাসে বি’পর্য’স্ত পৃথিবীকে মুক্তি দিতে একের পর এক গবেষণা চালিয়ে যাচ্ছেন স্বাস্থ্য বিজ্ঞানীরা। তেমনই এক গবেষণায় দেখা গেছে হাঁপানি বা অ্যাজমা'র একটি ওষুধ ক’রোনাভাই’রাসে আ’ক্রা'’ন্ত হওয়ার পর বাড়িতে থাকা বয়স্ক রোগীদের রোগীদের দ্রুত সেরে উঠতে সহযোগিতা করেছে।

আন্তর্জাতিক গণমাধ্যম বিবিসি জানায়, অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের এক গবেষণায় উঠে এসেছে, এই ওষুধ সেব’নের ফলে অন্যান্য চিকিৎসা প'দ্ধতির চেয়ে অন্তত তিন দিন আগে রোগীরা সুস্থ 'হতে পারেন। যুক্তরাজ্যের ন্যাশনাল হেলথ সার্ভিসেস (এনএইচএস) জানিয়েছে, রোগীভেদে করো’’না চিকিৎসায় এই ওষুধটি ব্যবহার করা যাবে।

একটি আন্তর্জাতিক চিকিৎসা গবেষণা পত্রিকায় অক্সফোর্ড গবেষকদের গবেষণা প্রতিবেদনটি প্রকাশিত হওয়ার অ’পেক্ষায় রয়েছে। গবেষণায় হাঁ’পানির কম দামি ওষুধ বিউডেসোনাইড প্রয়োগ করে একটি হিউম্যান ট্রায়াল পরিচালনা করা হয়। ৫০ বছর এবং ৬৫ বছরোর্ধ্ব ১৭০০ জন কোভিড রোগীদের ওপর এই পরীক্ষা চালানো হয়।

যাদের বেশিরভাগই আ’ক্রা'’ন্ত হওয়ার পর হাসপাতালে ভর্তি না হয়ে বাড়িতেই ছিলেন। বাজারে চালু হাঁ’পানির ওষুধগু'লোর মধ্যে তুলনায় কম দাম এই ওষুধের। হাঁপানির রোগীরা ওষুধটিকে শ্বা'সের সঙ্গে শরীরে টেনে নেন। পরীক্ষায় দেখা গেছে, দিনে দু’বার ৮০০ মিলিগ্রাম করে করে টানা দু’স'প্ত াহ ধরে ‘বিউডেসোনাইড’ দেওয়া হলে কো’ভিড রো’গীরা আরও তাড়াতাড়ি সেরে উঠছেন।

পরে ২৮ দিন ধরে তাদের আবার দেওয়া হয় ‘বিউডেসোনাইড’। অন্য চিকিৎসা প'দ্ধতিগু'লোর চেয়ে অন্তত ৩ দিন আগে তারা সেরে উঠতে পারছেন। সেরে ওঠার পরেও তারা অন্যভাবে সেরে ওঠা কো’ভিড রোগীদের তুলনায় বেশি সুস্থবোধ করছেন। অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাইমা'রি কেয়ার বিভাগের অধ্যাপক ক্রিস বাটলার বলেন, গবেষণায় দেখা গেছে হাঁপানির এই ওষুধটি মানবশরীরে কোনও পা’র্শ্বপ্রতি’ক্রিয়া সৃ'ষ্টি করে না।

Facebook Comments
Back to top button