করোনা নয়, বিএনপি দমনে মরিয়া সরকার: মির্জা ফখরুল

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, করো’নাভাইরাস মোকাবিলা নয় বরং মিথ্যা মাম'লা দিয়ে রাজনৈতিকভাবে বিএনপি নেতাকর্মীদের দমন করতে মর'িয়া হয়ে উঠেছে সরকার। বৃহস্পতিবার (৮ এপ্রিল) বিএনপির ভারপ্রা'প্ত দফতর সম্পাদক সৈয়দ এমর'ান সালেহ প্রিন্সের সই করা এক বিবৃতিতে এ সব কথা বলেন বিএনপি মহাসচিব।

বিবৃতিতে বিএনপি মহসচিব বলেন, ফরিদপুরের সালথায় বিএনপি এবং অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীসহ নামে-বেনামে চার হাজার জনের বিরু'দ্ধে মাম'লা, গ্রে'ফতার এবং হয়রানি-নি'র্যা'তনের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনার তিনি তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান। অবিলম্বে মাম'লা প্র'ত্যাহারসহ গ্রে'ফতারদের নিঃশর্ত মুক্তি ও সালথায় স্বাভা'বিক শান্তিপূর্ণ পরিবেশ ফিরিয়ে আনার জোর দাবি জানান তিনি।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, বাংলাদেশে গত বছরের তুলনায় করো’নাভাইরাস মহামা'রি এখন আরও প্রকট আকার ধারণ করেছে। ভাইরাসটিতে আ'ক্রা'ন্ত ও মৃ'তের সংখ্যা প্রতিদিন জ্যামিতিক হারে বৃ'দ্ধি পাচ্ছে। কিন্তু সংকটময় পরিস্থিতি সামাল দিতে পূর্বের বছরের মতোই ব্য'র্থতার পরিচয় দিয়ে যাচ্ছে সরকার। পরিস্থিতির ভ'য়াব'হতা রোধে সরকার কোনো চিন্তা-ভাবনা ছাড়াই তড়িঘড়ি করে গত ৫ এপ্রিল থেকে ৭ দিনের জন্য দেশে লকডাউন/নিষে'ধাজ্ঞা জারি করেছে।

তিনি বলেন, সরকারঘোষিত লকডাউনের বিরু'দ্ধে দেশের সব শ্রেণি-পেশার মানুষ রাস্তায় নেমে এসেছে। প্রকৃত অর্থে লকডাউন বলতে যা বোঝায় রাস্তাঘাটে তার কোনো সামান্যতম চিত্রও পরিলক্ষিত হচ্ছে না। সবকিছু খোলা রাখা হয়েছে। যার ফলে ক্ষ'তিগ্রস্ত হচ্ছে বড় বড় ব্যবসায়ীসহ ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী, দোকান কর্মচারী ও নিম্ন আয়ের মানুষ। ভুক্তভোগী সাধারণ মানুষ 'হতাশাগ্রস্ত হয়ে সরকারের বিরু'দ্ধে ফুঁসে উঠেছে।

বিবৃতিতে মির্জা ফখরুল ফরিদপুরের সালথায় বিএনপি, অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীসহ নামে-বেনামে চার হাজার জনের বিরু'দ্ধে মিথ্যা মাম'লা দায়ের ও ইতোমধ্যে ২১ জন গ্রে'ফতার এবং হয়রানি-নি'র্যা'তনের ঘটনায় নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে অবিলম্বে মাম'লা প্র'ত্যাহারসহ গ্রে'ফতারকৃতদের নিঃশর্ত মুক্তির দাবি জানান।

Facebook Comments
Back to top button