মার্কেট খুলে দেয়ার দাবি বসুন্ধরা-ইস্টার্ন প্লাজার ব্যবসায়ীদের

সরকার ঘোষিত দেশব্যাপী এক স'প্ত াহের বিধিনিষে'ধের তৃতীয় দিন বুধবার (৭ এপ্রিল) রাজধানীর বসুন্ধ’রা ও ইস্টার্ন প্লাজা শপিং কমপ্লেক্সসহ বিভিন্ন এলাকার ব্যবসায়ীরা মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছেন। স্বাস্থ্যবিধি মেনে মা'র্কেট খুলে দেয়ার দাবিতে সকাল থেকেই ব্যবসায়ী ও কর্মচারীরা বিভিন্ন মা'র্কে'টের সামনে সমবেত 'হতে থাকেন।

এ সময় তারা ‘স্বাস্থ্যবিধি মানব, দোকানপাট খুলব’, ‘আমা'দের দাবি মানতে হবে, দোকানপাট খুলতে হবে’, ‘গণপরিবহন যদি চলবে, মা'র্কেট কেন বন্ধ থাকবে’ ই'ত্যাদি নানা শ্লোগান দিয়ে তাদের দাবি জানাতে থাকেন।

সরেজমিনে দেখা গেছে, বসুন্ধ’রা শপিং কমপ্লেক্সের সামনের সড়কে ব্যবসায়ী-কর্মচারীদের বাধার মুখে ক্ষণিকের জন্য যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। পু'লিশ এসে দ্রুত পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে এবং তাদের সড়ক অবরোধ থেকে নিবৃত্ত করে। এ সময় তারা সুশৃঙ্খলভাবে ব্যানার নিয়ে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেন। ইস্টার্ন প্লাজার সামনে ব্যবসায়ী-কর্মচারীরা মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে।

নিউমা'র্কেট, গাউছিয়া, এলিফেন্ট রোড, সাইন স্টোরিসহ বিভিন্ন মা'র্কে'টের সামনে কর্মসূচি না থাকলেও অ'সংখ্য দোকান মালিক ও কর্মচারীদের দোকানের সামনে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায়।

তারা বলেন, সামনে রমজান, স্বাস্থ্যবিধি মেনে মা'র্কেট খুলে দেয়া হলে তারা বিপুল অ'ঙ্কের আর্থিক ক্ষ'তি থেকে রক্ষা পাবেন। গত বছর করো’নাকালে এমনিতেই তারা ব্যাপকভাবে ক্ষ'তিগ্রস্ত হয়েছেন। তারা করো’না সংক্রমণ রোধে সব ধরনের স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলবেন বলে জানান।

উল্লেখ্য, গত মা'র্চের শেষ দিক থেকে দেশে সংক্রমণ ও মৃ'ত্যুর আকস্মিক ঊর্ধ্বগতি দেখা যাচ্ছে। হাসপাতালগু'লোতে রোগীর ভিড় বাড়তে থাকার পরিপ্রেক্ষিতে সরকার ৫ এপ্রিল থেকে সারাদেশে বিধিনিষে'ধ জারি করে। এরই অংশ হিসেবে সারাদেশে গণপরিবহনসহ জরুরি সেবার বাইরে সব ধরনের পরিবহন চলাচল বন্ধ ঘোষণা করা হয়। শিল্পকারখানা সীমিত আকারে চালু রেখে বন্ধ করা হয় অফিস-মা'র্কেট। যদিও এই বিধিনিষে'ধ আরোপের পর থেকে রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে দোকান-মা'র্কেট খুলে দেয়ার দাবিতে 'বিক্ষো'ভসহ সড়ক অবরোধ করতে দেখা গেছে

বিধিনিষে'ধ আরোপের দু’দিনের মাথায়ই সরকার তাদের অবস্থানে কিছুটা পরিবর্তন আনে। জনভোগান্তি বিবেচনায় নিয়ে সিটি এলাকায় গণপরিবহন চলাচলের সি'দ্ধান্ত নেয় তারা।

Facebook Comments
Back to top button