আখেরি মোনাজাতে শেষ হলো চরমোনাইর বার্ষিক মাহফিল

বরিশালের কীর্তনখোলা নদীর তীরে অবস্থিত চরমোনাইর ঐতিহ্যবাহী দ্বীনি প্রতিষ্ঠান জামেয়া র'শিদিয়া আহসানাবাদ মা'দরাসার (ফাল্গু'নের) বার্ষিক মাহফিল আখেরি মোনাজাতের মাধ্যমে শেষ হল আজ। শনিবার সকালে চরমোনাই পীর মুফতি সৈয়দ মুহাম্মা'দ রেজাউল করীম ধর্মপ্রাণ মুসল্লিদের বিশাল এ গণ জমায়েতে আখেরি মোনাজাত পরিচালনা করেন।

পীর সাহেব চরমোনাই আখেরি মোনাজাতে দেশ, মানবতা, ইসলাম ও দেশের মানুষের শান্তি ও কল্যাণের জন্য দোয়া করেন। বিশ্বশান্তি প্রতিষ্ঠা এবং ইসলামবিরোধী, মানবতাবিরোধী অ’পশক্তির হেদায়াতেরও দোয়া করেন। মুমিন মুসলমানদের ঐক্যের আহ্বানেরও দোয়া করা হয়। এ সময় পুরো মাঠ আমিন আমিন রবে মুখরিত হয়।

চরমোনাই পীর মুফতি সৈয়দ মুহাম্মা'দ রেজাউল করীমের উদ্বোধনী বয়ানের মাধ্যমে গত ২৪ ফেব্রুয়ারি, বুধবার বাদ জোহর শুরু হয় এ মাহফিল। তিনদিন ব্যাপী মাহফিলে তিনি ৫টি বয়ান পেশ করেন এবং নায়েবে আমীর মুফতি সৈয়দ মুহাম্মা'দ ফয়জুল করীম ২টি বয়ান পেশ করেন।

আখেরি মোনাজাতের আগে দেয়া হেদায়েতি বয়ানে পীর সাহেব চরমোনাই বলেন, মানুষ যখন আল্লাহকে ভুলে যায়, তখন মানুষের মধ্যে মানবতা থাকে না; বিধায় তারা যে কোনো অ’পরাধে জড়িয়ে যায়।

সুতরাং আমা'দের সবার মধ্যে আল্লাহর ভয় এবং আল্লাহ ও তাঁর রাসুলের পূর্ণ আনুগত্য থাকতে হবে। আল্লাহ ও তার রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম-এর মনোনীত দ্বীন ছাড়া অন্য কোনো তন্ত্রমন্ত্র কখনোই গ্রহণ করা যাবে না বলেও উল্লেখ করেন পীর সাহেব চরমোনাই।

তিনি আরও বলেন, যারা আল্লাহ ও তাঁর রাসুলের আদর্শ ছাড়া অন্য আদর্শ গ্রহণ করে কিংবা অন্য আদর্শের দিকে লোকদের আহ্বান করে, নিশ্চয়ই তারা পথভ্র'ষ্ট।’

আজ শনিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) বাদ ফজর হেদায়েতি বয়ানের পর পীর সাহেব চরমোনাই মুফতি সৈয়দ মুহাম্মা'দ রেজাউল করীম আখেরি মোনাজাত পরিচালনা করেন।

Facebook Comments
Back to top button