রায় শোনার সঙ্গে সঙ্গেই কা’ন্নায় ভেঙে পড়েন দীপনের স্ত্রী’ ডা. রাজিয়া রহমান

জাগৃতি প্রকাশনীর প্রকাশক ফয়সাল আরেফিন দীপন হ’'ত্যা মা’ম'লায় মেজর সৈয়দ জিয়াউল হকসহ আট' আ’সামির ফাঁ'’সির আদেশ দিয়েছেন আ’দালত।

বুধবার ঢাকার স'ন্ত্রাসবিরোধী বিশেষ ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. মজিবুর রহমান আ’লোচিত এ মা’ম'লার রায় ঘোষণা করেন।

রায় শোনার সঙ্গে সঙ্গেই কা’ন্নায় ভেঙে পড়েন দীপনের স্ত্রী ডা. রাজিয়া রহমান।

এদিন রায়ের ঠিক আগে আ’দালতে হাজির হন ডা. রাজিয়া রহমান, তার সাথে আসেন আতিকা রুমা ও সৈয়দ হাসান ই’মামের মেয়ে সৈয়দা তানজুমা ই’মাম। তাদেরও কাঁদতে দেখা যায়।

রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করে রাজিয়া রহমান বলেন, যারা এখন পর্যন্ত পলাতক, তাদের দ্রুত গ্রে'’ফতার করে রায় যেন কার্যকর করা হয়।

মৃ'’ত্যুদ’ণ্ডপ্রা'প্ত অন্যরা হলেন- মইনুল হাসান শামীম ওরফে সিফাত সামির, আবদুস সবুর ওরফে আবদুস সামা'দ, খাইরুল ইস’লাম ওরফে জামিল রিফাত, আবু সিদ্দিক সোহেল ওরফে সাকিব সাজিদ, মোজাম্মেল হুসাইন ওরফে সায়মন, শেখ আবদুল্লাহ ওরফে জুবায়ের ও আকরাম হোসেন ওরফে হাসিব।

আ’সামিদের মধ্যে জিয়া ও আকরাম পলাতক রয়েছেন।

রায় উপলক্ষে এদিন সকাল সাড়ে ৮টার দিকে কাশিমপুর কারা'গার থেকে ছয় আ’সামিকে আ’দালতে আনা হয়। এ সময় তাদের কোর্ট হাজতে রাখা হয়। বেলা সাড়ে ১১টার একটু আগে তাদের ট্রাইব্যুনালে হাজির করা হয়।

রায় ঘোষণা উপলক্ষে আ’দালতের ভেতরে ও বাইরে নিরাপ'ত্তা জো’রদার করা হয়। আ’দালত এলাকায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কড়া নজরদারি ছিল।

আ’দালত সূত্র জানায়, রাজধানীর আজিজ সুপার মা’র্কে’টের ৩য় তলায় ‘জাগৃতি প্রকাশনী’ অফিসে ঢুকে অ’জ্ঞাত স’ন্ত্রাসীরা ধা'রালো অ’স্ত্র দিয়ে ফয়সাল আরেফিন দীপনের ঘাড়ের পেছনে আ’ঘা'ত করে হ’'ত্যা করে।

ঘটনাটি ঘটে ২০১৫ সালের ৩১ অক্টোবর ৪টার মধ্যে। হ’'ত্যাকা’ণ্ড শেষে অফিসের অটোলক তালা লক করে পালিয়ে যায় জ’ঙ্গিরা।

সেদিন 'বিকালে দীপনের স্ত্রী শাহবাগ থা’নায় একটি হ’'ত্যা মা’ম'লা করেন। ২০১৮ সালের ১৫ নভেম্বর স'ন্ত্রাসবিরোধী আইনে অ’ভিযোগপত্র দাখিল করেন মা’ম'লার ত’দন্ত কর্মক’র্তা ডিবি দক্ষিণের সহকারী পু’লিশ কমিশনার ফজলুর রহমান। চার্জশিটে আট'জনকে অ’ভিযু’ক্ত ও ১১ জনকে অব্যা'হতির সুপারিশ করা হয়।

এর পর ২০১৯ সালের ১৩ অক্টোবর ঢাকার স'ন্ত্রাসবিরোধী ট্রাইব্যুনালের বিচারক মুজিবুর রহমান নি'ষি'দ্ধ ঘোষিত জ’ঙ্গি সংগঠন আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের (এবিটি) সদস্য বাংলাদেশ সে’নাবাহিনীর চাকরিচ্যুত মেজর সৈয়দ জিয়াউল হকসহ আট'জনের বি’রু'দ্ধে অ’ভিযোগ গঠন করেন।

Facebook Comments
Back to top button