বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেয়ার আশ্বাস মিয়ানমার সেনাপ্রধানের

জরুরি অবস্থা জারির পর জাতির উদ্দেশে দেওয়া প্রথম ভাষণে মিয়ানমা'রের সেনা প্রধান জেনারেল মিন অং লাইং বলেছেন, ভোট জালিয়াতির কারণে দেশের বেসামর'িক নেতাদের ক্ষ'মতাচ্যুত করা হয়েছে। অচিরেই নতুন নির্বাচনের মধ্য দিয়ে বিজয়ী দলের কাছে ক্ষ'মতা হস্তান্তর করা হবে বলে জানিয়েছেন মিয়ানমা'রের সেনাপ্রধান জেনারেল মিং অং লাইং। টেলিভিশনে দেয়া ভাষণে, বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদের মিয়ানমা'রে ফিরিয়ে নেয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেন তিনি।

মিন অং লাইং বলেন, গণতান্ত্রিক ধা'রা অব্য'হত রাখার জন্য ২০০৮ সালের সেনা সংবিধান অনুযায়ী তাদেরকে গ্রে'ফতার করা হয়েছে। শিগগিরই নতুন নির্বাচনের আয়োজন করে বিজয়ী দলের কাছে ক্ষ'মতা হস্তান্তর করা হবে। এদিকে সামর'িক অভ্যুত্থান ও নির্বাচিত নেতা অং সান সু চিকে গ্রে'ফতারের বিরু'দ্ধে ক্রমবর্ধমান 'বিক্ষো'ভের চাপে হুঁশিয়ারি জারি করেছে মিয়ানমা'রের সেনাবাহিনী। সোমবার মিয়ানমা'র পু'লিশের পক্ষ থেকে 'বিক্ষো'ভকারীদের সতর্ক করে বলা হয়, চলে যাও। এ ঘোষণার কিছুক্ষণ আগে 'বিক্ষো'ভকারীদের বিরু'দ্ধে পদ'ক্ষেপ নেওয়ার ইঙ্গিত দেয় রা'ষ্ট্রীয় সম্প্রচার মাধ্যম।

স'প্ত াহজুড়ে চলা 'বিক্ষো'ভে গতকালই প্রথমবারের মতো মা'রমুখী ভূমিকা নেয় জান্তা সরকার। লাঠিচার্জসহ জলকামান থেকে ছোড়া হয় গরম পানি। আট'ক হন শিক্ষক, চিকিসৎকসহ অন্তত দেড় শতাধিক নাগরিক। গত ১ ফেব্রুয়ারি য়ানমা'রের ক্ষ'মতা দখল করে দেশটির সামর'িক বাহিনী। এদিন অ'ভিযান চালিয়ে রা'ষ্ট্রীয় উপদে'ষ্টা অং সান সু চি এবং ক্ষ'মতাসীন দলের শীর্ষস্থানীয় নেতাদের গ্রে'ফতার করা হয়। দেশজুড়ে ঘোষণা করা হয় এক বছরের জরুরি অবস্থা।

Facebook Comments
Back to top button