বিয়ের দাবিতে প্রেমিকের বাড়িতে কলেজছাত্রীর অনশন, প্রেমিকসহ বাবা-মা উধাও

টা’ঙ্গাইলের সখীপুরে বিয়ের দাবিতে তিনদিন ধরে প্রেমিকের বাড়িতে অবস্থান নিয়েছেন এক কলেজছাত্রী। মেয়েটিকে দেখেই প্রেমিক ও তার বাবা-মা বাড়ি থেকে সটকে পড়েছেন। এলাকাবাসীর উদ্যোগে মেয়েটি এখন প্রেমিকের বাড়িতেই প্রেমিকের ফুপা ময়েজ উদ্দিনের তত্ত্বাবধানে রয়েছেন।

ঘটনাটি উপজে’লার কালমেঘা গ্রামের। প্রেমিক শাহরিয়ার শুভ ওই গ্রামের আজাহার আলীর ছেলে। প্রেমিকের বাড়িতে অবস্থান নেওয়া মেয়েটির বাড়ি ময়মনসিংহের ভালুকা উপজে’লার বাটাজোর গ্রামে।

জানা গেছে, মেয়েটি গত বৃহস্পতিবার থেকে প্রেমিকের বাড়িতে অবস্থান করছেন।

উপজে’লার বহুরিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান গো’লাম কিবরিয়া সেলিম জানান, ছেলে ও মেয়ে ময়মনসিংহের ভালুকা উপজে’লার একই কলেজে পড়াশোনা করে। ছয়মাস ধরে তাদের প্রেমের সম্পর্ক। মাসখানেক আগে ছেলেটি রাতের বেলায় ওই মেয়েটির বাড়িতে দেখা করতে গিয়ে এলাকাবাসীর হাতে আট'’ক হয়। পরে বিয়ের শর্ত দিয়ে ছেলের বাবা মেয়েটির বাড়ি থেকে ছেলেকে ছাড়িয় নেন।

দুই পরিবার মিলে চলতি বছরের ১ ফেব্রুয়ারি বিয়ের দিন ধার্য করেন। যথারীতি ওইদিন মেয়ের বাড়িতে বিয়ের আয়োজন করা হয়। ছেলেপক্ষ থেকে ১০-১২ জন মেহমান মেয়ের বাড়িতে বিয়ের অনুষ্ঠানে গেলেও ছেলে ও ছেলের বাবা উপস্থিত না হওয়ায় বিয়ে-রেজিস্ট্রি (কাবিন) হয়নি।

এ প্রস’ঙ্গে অনশনরত মেয়েটি জানান, শাহরিয়ার শুভ ও তার বাবা আমা’দের স’ঙ্গে দু’বার প্রতারণা করেছেন। আমি মান সম্মান বাঁচাতে বাধ্য হয়ে এ বাড়িতে এসেছি। বিয়ে না হওয়া পর্যন্ত আমি এ বাড়ি থেকে যাব'’ো না। প্রয়োজনে এখানেই মর'’বো।

ছেলেটির বাবা আজহার আলী বলেন, আমা’র স্ত্রী অ’সুস্থ। স্ত্রীকে নিয়ে আমি ময়মনসিংহের একটি বেসরকারি হাসপাতালে রয়েছি।

এ বি’ষয়ে বহুরিয়া ইউনিয়ন পরিষদের সংরক্ষিত আসনের মহিলা সদস্য রাহেলা আক্তার বলেন, মেয়েটিকে তার ফুপার জিম্মায় ছেলের বাড়িতেই রাখা হয়েছে। ছেলের বাবা-মা বাড়িতে এলে পরবর্তী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Facebook Comments
Back to top button