সং’ঘ’র্ষ-প্রা’ণহা’নিতে শেষ হলো চট্টগ্রাম সিটির ভোট

সং'ঘর্ষ, প্রাণহানি আর বিএনপির অ'ভিযোগের মধ্য দিয়ে শেষ হয়েছে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের ভোটগ্রহণ। ৭৩৫টি কেন্দ্রে বুধবার সকাল ৮টায় ইভিএমে ভোটগ্রহণ শুরু হয়ে চলে 'বিকাল ৪টা পর্যন্ত। ভোট চলাকালে লালখানবাজার, পাথরঘাটা আর পাহাড়তলীতে প্রতিদ্বন্দ্বী কাউন্সিলর প্রার্থীদের মধ্যে সং'ঘর্ষ হয়। এর মধ্যে পাহাড়তলীতে গু'লিতে মা'রা যান একজন। পাথরঘাটায় ইভিএম মেশিন ভাঙচুর করার অ'ভিযোগে বিএনপি সমর'্থিত এক কাউন্সিলর প্রার্থীকে আট'ক করেছে পু'লিশ।

নির্বাচনে ভোটারের সংখ্যা ১৯ লাখ ৩৮ হাজার ৭০৬ জন। তাদের ভোটে নির্বাচিত হবেন একজন মেয়র, ৩৯ জন ওয়ার্ড কাউন্সিলর এবং সংরক্ষিত ওয়ার্ডের ১৪ জন নারী কাউন্সিলর। মেয়র পদে সাতজন প্রার্থী থাকলেও বরাবরের মত প্রতিদ্বন্দ্বিতা হয়েছে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকের প্রার্থী এম রেজাউল করিম চৌধুরী এবং বিএনপির ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী শাহাদাত হোসেনের মধ্যে।

নির্বাচনী কর্মক'র্তারা জানান, ইভিএমে ভোট হওয়ায় ফলাফলের জন্য দীর্ঘ সময় অ’পেক্ষা করার প্রয়োজন হবে না। কেন্দ্র থেকে ফলাফল এলে এম এ আজিজ স্টেডিয়ামের জিমনেশিয়ামে রিটার্নিং কর্মক'র্তার নিয়ন্ত্রণ কক্ষ থেকে তা ঘোষণা করা হবে।

ভোট শুরুর পরেই নগরের খুলশী থা'নার ইউসেপ আমবাগান কেন্দ্রে আওয়ামী লীগ ও বিদ্রো'হী প্রার্থীর সমর'্থকদের মধ্যে সং'ঘর্ষ হয়। এতে একজন নি'হত হয়েছেন। সকাল সাড়ে নয়টার দিকে ১৩ নম্বর পাহাড়তলী ওয়ার্ডের আমবাগান এলাকায় ইউসেপ স্কুল কেন্দ্রের বাইরে গু'লিতে নি'হত হন আলাউদ্দিন আলম (২৮) নামের এক ব্যক্তি। এ ঘটনায় আ'হত হয়েছেন আরো কয়েকজন।

১৩ নম্বর পাহাড়তলী ওয়ার্ডের ইউসেফ আমবাগান স্কুল কেন্দ্রের বাইরে আওয়ামী লীগ-সমর'্থিত কাউন্সিলর প্রার্থী ওয়াসিম উদ্দিন চৌধুরী ও বিদ্রো'হী প্রার্থী মাহমুদ উল্লাহর সমর'্থকদের মধ্যে সং'ঘর্ষ ও গো'লাগু'লি হয়। সকাল সাড়ে নয়টার দিকে আধিপত্য বিস্তারের জের ধরে এই সং'ঘর্ষ হয়। এতে গু'লিবি'দ্ধ হয়ে নি'হত হন আলাউদ্দিন।

জানা যায়, নি'হত আলাউদ্দিন আমবাগান এলাকায় থাকতেন। তিনি কুমিল্লার জে'লার বুড়িচংয়ের মৃ'ত সুলতান আহম'দের ছেলে। চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পু'লিশ ফাঁ'ড়ির নায়েক আমীর হোসেন বলেন, গু'লিবি'দ্ধ অবস্থায় আলাউদ্দিনকে সকাল সাড়ে নয়টার পর আনা হয়। ১০টার দিকে তিনি মা'রা যান। তবে আলাউদ্দিন কিভাবে গু'লিবি'দ্ধ হলেন, তা জানাতে পারেননি পু'লিশ।

বহদ্দারহাটে এখলাসুর রহমান প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র্রে ভোট দিয়েছেন আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী রেজাউল করিম চৌধুরী। আর পশ্চিম বাকলিয়া ওয়ার্ডে টিচার্স ট্রেনিং কলেজের প্রশাসনিক ভবন কেন্দ্রে ভোট দেন বিএনপির মেয়র প্রার্থী শাহাদাত হোসেন। এসময় নির্বাচনে অনিয়ম ও কারচুপির অ'ভিযোগ আনেন তিনি।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, আমবাগান ইউসেপ স্কুল, ঝাউতলা ওয়্যারলেস স্কুল ও পাহাড়তলী কলেজ কেন্দ্রে অ'স্ত্র নিয়ে প্রকাশ্যে মহড়া দিতে দেখা দেখা অনেককে।

এদিকে, চট্টগ্রামের ১৪ নম্বর ওয়ার্ড লালখান বাজার এলাকায় আওয়ামী সমর'্থিত কাউন্সিলর প্রার্থী আবুল হাসনাত মোহাম্ম'দ বেলাল এবং মনোনয়ন বঞ্চিত দিদারুল আলম মাসুমের সমর'্থকদের মধ্যে সং'ঘর্ষ এবং ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এসময় ককটেল বি'স্ফো'রণের ঘটনা ঘটে।

সকাল ৯টার দিকে লালখান বাজার শ’হীদ নগর সিটি করপোরেশন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রের সামনে এই ঘটনা ঘটে। এসময় পাথর নি'ক্ষেপ ও লাঠি নিয়ে হাম'লায় জড়ায় দুই পক্ষ। পরে অতিরিক্ত পু'লিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

কেন্দ্রটির প্রিজাইডিং অফিসার বশির আহমেদ বলেন, কেন্দ্রের বাইরে গণ্ডগোল হয়েছে। তবে কেন্দ্রের অভ্যন্তরে কোনো সমস্যা নেই। এছাড়া পাথরঘাটা ও পাহাড়তলীতে কাউন্সিল প্রার্থীদের সমর'্থকদের মধ্যে বিচ্ছিন'্নভাবে সং'ঘর্ষ হয়েছে।

Facebook Comments
Back to top button