ব্যাংক ডা’কাতি শিখতে ১৫৪ বার ‘ধু’ম থ্রি’ দেখেন স্কুলছাত্র কৌশিক

বলিউডের ছবি ‘ধুম-৩’ ১৫৪ বার দেখে উদ্বু’’'দ্ধ হয়ে বগু'’ড়ার গাবতলীতে রূ’পালী ব‌্যাংকে ডা’কাতির পরিকল্পনা করে ১৬ বছর বসয়ী স্কুলছাত্র কৌশিক। পরে ডা’কাতিকালে দুই অনসার সদস্যকে চু’রিকাঘা’ত করেও তা বাস্তবায়নে ব্য’র্থ হয় সে। গণমাধ্যমকে এ তথ্য জানিয়েছেন বগু'’ড়া ডিবি পু’লিশের ওসি আব্দুর রাজ্জাক।

গত ২২ জানুয়ারি ভোরে গাজীপুরের ট’ঙ্গীর নি’শাতনগর থেকে ওই ছাত্রকে গ্রে'’ফতার করা হয়। পরে তাকে গাবতলীর জুডিশিয়াল ম‌্যাজিস্ট্রেট আ’দালতে নেওয়া হয়। সেখানে সে স্বী’কারোক্তি’মুলক জবানব’ন্দিতে দেয়। পরে তাকে কারা'’গারে রাখা হয়েছে বলে জানা গেছে।

২০১৯ সালে প্রেসিডেন্ট অ্যাওয়ার্ডসহ রাজশাহী বিভাগের সেরা স্কাউটের খেতাব পায় কৌশিক। তার বাবা বগু'’ড়া শহরের নিউ মা’র্কেট এলাকার ব্যবসায়ী। বাড়ি শহরতলীর মাটিডালি এলাকায়। তার বড় বোনের বিয়ে হয়েছে বগু'’ড়ার গাবতলীতে। বোনের বাড়িতে থাকায় অবস্থায় ব্যাংকে ডা’কাতির চি’ন্তা মাথায় আসে তার।

পু’লিশ জানিয়েছে, ‘ধু’ম-৩’ থ্রিলার ছবিতে সর্বাধুনিক ভিএফএক্সের মাধ্যমে দুঃ’সাহসিক সব ঝুঁ’কিপূ’র্ণ দৃশ্যে দেখেন তিনি। সেখানে ই-বাইক (যা মাটি ও পানিতে সমানভাবে চলে) ব্যবহার করে ডা’কাতির দুঃ’সাহসি’ক দৃশ্য তুলে ধ’রা হয়। মূলত এই ছবি দেখে এবং সাইবার অ’পরাধে বিচরণ করে বেড়ানো ওই ছাত্রের সাধ জাগে ব্যাংক ডা’কাতির ঝুঁ’কিপূর্ণ অ্যাড’ভেঞ্চারের।

জানা গেছে, ডার্ক ওয়েবে অ’বাধ বিচরণ ছিল কৌশিকের। ওই ওয়েবে হোয়াইট ডে’ভিল নামে একটি হ্যা’কিং গ্রুপের মাধ্যমে কৌশিকের ইচ্ছা ছিল বিশ্বের শীর্ষ অ’পরা’ধীদের খাতায় নাম লেখানো। এ কারণে সে একটি আন্তর্জাতিক অনলাইন প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করে রাশিয়া থেকে চা’হিদা দিয়ে এনেছিল পার’ক্লোরিক এ’সিড, ক্লো’রোফম, এডিনল ইথানল ও পটা’শিয়াম ডাই’ক্লোরেট নামের বিভিন্ন ভী’তিকর রাসায়নিক পদার্থ। নিজের বাড়িতে বসে সে তার ব্যক্তিগত ল্যাব'’ে এসব নিয়ে গবেষণা চালাতো।

কৌশিক সেনা কমা’ন্ডোর মতোই নিজেকে রক্ষা করতে সক্ষ’ম। মাত্র ৩০ মিনিটের মধ্যে বি’পদজ্জ’নক দো’নলা ব’ন্দুক তৈরি করতে পারে। একই স’ঙ্গে চে’তনা’নাশ’ক গ্যাসও তৈরি করতে পারে। এটি স্প্রে করলে যে কেউ নির্দি’'ষ্ট সময়ের জন্য চেত’না হারাবে বলেও জানা গেছে।

গত ৫ জানুয়ারি বগু'’ড়ার গাবতলীতে ছু’রিকাঘা’ত ও দা’হ্য পদার্থ ছুড়ে দুই নি’রাপত্তার’ক্ষীকে আ’'হত করে রূপালী ব্যাংকের একটি শাখায় ডা’কাতির চে’'ষ্টা করে। মুখোশ পরা অবস্থায় তার নিক্ষি’'প্ত দাহ্য পদার্থ ও ছু’রিকাঘা’তে দুই আনসার সদস্য আ’’'হত হয়েছে। ওই দিন ভোরে সে মুখোশ এবং হাতে বিশেষ রু’ফটপ গ্লাভস পরে প্রথমে ছাদে ওঠে। এরপর কা’টার দিয়ে ছাদের সিঁড়িঘরের তালা কে’টে ভেতরে ঢোকে কৌশিক। শেষে ব্যাংকের ভেতরের ভল্ট ভাঙার চে’'ষ্টা করেও সে ব্য’র্থ হয়। ঘটনার ১৮ দিন পর গাজীপুরের ট’ঙ্গীর চাচার বাড়ি থেকে তাকে গ্রে'’ফতার করে পু’লিশ।

বগু'’ড়া ডিবি পু’লিশের ওসি আব্দুর রাজ্জাক আরোও জানান, সে ইনফরমেশন টেকনোলজিতে ভালো দক্ষতা রাখে। তাকে কারা'’গারে রাখা হয়েছে। যশোরের কিশোর শো’ধনাগারে পাঠানো হবে।

Facebook Comments
Back to top button