ক্লাসরুম ভাড়া দেওয়া, শিক্ষার্থীরা ঘুরছে রাস্তায়!

খুলনার পাইকগাছায় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দুই শ্রেণিকক্ষ ভাড়া দেওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এর ফলে স্কুল খুললেও শিক্ষার্থীরা এদিকে সেদিক ঘুরে বাড়ি চলে গেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

জানা যায়, করো’নায় প্রকো'প ে দেশের অন্যসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মত উপজে'লার কালুয়া গড়েরআবাদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ও বন্ধ হয়ে যায়। স্থানীয় একটি রাস্তার কাজে নিয়োজিত শ্রমিকদের থাকার জন্য বিদ্যালয়ের দু’টি কক্ষ ভাড়া দেওয়া হয়। বিদ্যালয়টিতে মোট ভবনই আছে অফিস কক্ষ ছাড়া ৩টি। এর মধ্যে দু’টিই ভাড়া দেওয়া হয়ে যায়।

দুটি কক্ষে ৮ জন জন নারী-পু’রুষ এক মাসেরও অধিক সময় থাকা খাওয়া করছে বলে স্থানীয়রা জানান। এদিকে নোং'রা ও অপ'রিচ্ছন্ন একটি কক্ষে শতাধিক শিক্ষার্থীদের রোববার ঠাসাঠাসি পরিবেশে পাঠদান করানো হয়েছে।

এ বি'ষয়ে বিদ্যালয়টির ভারপ্রা'প্ত প্রধান শিক্ষক আবুল কাশেম মাসুদুল হক বলেন, আমার স্কুলের সভাপতি সলেমান সানা এ ব্যবস্থা করেছেন। গজালিয়া থেকে চৌমুহনী রাস্তার কাজের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের লোকজনদের থাকার স্থান না থাকায় স্কুলে আশ্রয় দেয়া হয়েছে।

তবে সভাপতি সলেমান সানা অভিযোগ অ'স্বীকার করে জানান, স্থানীয় ইউপি সদস্য আক্কাস ঢালী ও এলাকাবাসীর চাপে প্রতিষ্ঠানটি ব্যবহার করতে দিয়েছি।

এ বি'ষয়ে উপজে'লা সহকারী শিক্ষা অফিসার ঝংকর ঢালী বলেন, এক স'প্ত াহ আগে প্রতিষ্ঠানে গিয়ে প্রধান শিক্ষককে বিদ্যালয়টি পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করার নির্দেশ দিয়ে এসেছিলাম।

উপজে'লা নির্বাহী অফিসার এবিএম খালিদ হোসেন সিদ্দিকী বলেন, কোনো সরকারি প্রতিষ্ঠান ভাড়া দেওয়ার এখতিয়ার কারও নেই। বি'ষয়টি জানতে পেরে তাৎক্ষণিক উপজে'লা সহকারী শিক্ষা অফিসারকে কারণ দর্শানোর জন্য বলা হয়েছে। জবাব পাওয়ার পর আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বার্তা বাজার

Back to top button