অনির্দিষ্টকালের জন্য আইপিএল স্থগিত

করো’না ভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউয়ে বিপর্যস্ত গোটা ভারত। দেশজুড়ে চলছে হাহাকার। এমন অবস্থায় দিল্লির অরুণ জেটলি স্টেডিয়ামে চলমান আইপিএলে’র প্রথম ম্যাচটি যেদিন অনুষ্ঠিত হয়েছিল, সোশ্যাল মিডিয়ায় ক্ষো'ভ উগড়ে দিয়েছিলেন নেটিজেনরা। মৃ'ত্যুপুরী নয়াদিল্লিতে আইপিএল আয়োজনের যৌ'ক্তিকতা কোথায়, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রশ্ন তুলেছিলেন। তবে এবার করো’নার প্রকো'প বাড়ায় অনির্দি'ষ্টকালের জন্য আইপিএল স্থগিত করেছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড। করো’নার কারণে আইপিএল আয়োজন নিয়ে চলছে তুমুল আলোচনা-সমালোচনা। ইতোমধ্যে দিল্লির উচ্চ আ'দালতে টুর্নামেন্ট বন্ধ চেয়ে মাম'লাও করা হয়েছে। কঠোর জৈব সুরক্ষার মধ্যেই চলছিল ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল)। এখন পর্যন্ত ২৮টি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হলেও মাঝপথে করো’নায় আ'ক্রা'ন্ত শুরু 'হতে শুরু করেছেন ক্রিকেটার ও স্টাফরা।

ভারতে করো’নার দ্বিতীয় ঢেউ চলছে। দৈনিক আ'ক্রা'ন্তের গড় সংখ্যা ছুঁয়েছে তিন লাখে। মৃ'ত্যুর সংখ্যাও নেহায়েত কম নয়, ৩ হাজারের ওপর মৃ'ত্যু হচ্ছে নিয়মিত। দেশের এমন পরিস্থিতিতে কেন আইপিএল? এই সময়ে আইপিএল বন্ধের দাবিতে দিল্লি হাইকোর্টে আবেদন করেছেন করন এস ঠুকরাল নামের এক আইনজীবী। আবেদনে লেখা হয়েছে, মানুষের স্বাস্থ্য অ’পেক্ষা আইপিএল’কে কেন অগ্রাধিকার দিচ্ছে। ওই আবেদনে আরও বলা হয়েছে, দিল্লির ফিরোজ শাহ কোটলা স্টেডিয়ামে আইপিএল নয়, কোভিড-কেয়ার সেন্টার বানানোর।

পি'টিশনার করন এস ঠুকরাল এবং ইন্দর মোহন সিং এমন পরিস্থিতিতে কাঠগড়ায় তুলেছেন দিল্লির কেন্দ্রীয় সরকার, বিসিসিআই, আইপিএল গভর্নিং কাউন্সিল, দিল্লি ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন এবং রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়ালকে। পি'টিশনে বলা হয়েছে, ‘দিল্লিতে যখন সাধারণ মানুষ হাসপাতালে চিকিৎসা পাচ্ছে না, শেষকৃত্যের জন্য জায়গা পাচ্ছে না, মুমুর্ষ রোগীর জন্য অক্সিজেনের এবং ওষুধের অভাবে মর'ছে, সেখানে আইপিএলের ম্যাচ সাধারণ মানুষের মানসিক অবস্থা ন'ষ্ট করছে। বিশেষ করে যারা তাদের প্রিয়জনদের জীবন বাঁচাতে উদ্যত।’

তবে বর্তমান পরিস্থিতি ও আইপিএলে বেশ কয়েকটি দলের খেলোয়াড় ও কর্মক'র্তার কোভিড পজিটিভ হওয়ার খবরে দিল্লি থেকে সরে যেতে পারে ম্যাচ। এক্ষেত্রে মুম্বাইতে নতুন সূচিতে 'হতে পারে স্থগিত ম্যাচগু'লো।

Facebook Comments
Back to top button