করোনা আক্রা’ন্ত স্ত্রীকে দিয়ে ভয় দেখিয়ে পাওনা টাকা আদায়

করো’নাভাইরাসে আ'ক্রা'ন্ত স্ত্রীকে দিয়ে সংক্রমণের ভয় দেখিয়ে টাকা আ'দায় করতে এক ব্যক্তির বাড়িতে গেলেন। আতঙ্কিত হয়ে বকেয়া টাকা দিয়ে দেন সেই লোক। সিসিটিভি ক্যামেরাতে ধ’রা পড়েছে সেই ঘটনার ভিডিও।

ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের হুগলি জে'লার বৈদ্যবাটিতে। এতে করে আতঙ্ক ছড়িয়েছে বৈদ্যবাটির ওই এলাকায়।

যিনি এই ঘটনা ঘটিয়েছেন তার নাম গঙ্গারাম সরকার। তিনি ইটের ব্যবসা করে থাকেন। গঙ্গারাম সরকার ইট কেনার জন্য এক ইটভাটা মালিককে ৫ লাখ টাকা ধার দিয়েছিলেন। কিন্তু সেই টাকা না দেয়ায় তিনি এই কাণ্ড ঘটান।

গঙ্গারাম জানান, বৈদ্যবাটির নিমাইতীর্থ ঘাট এলাকার ইটভাটা মালিক শেষনাথ সিংহকে কয়েক মাস আগে ৫ লাখ টাকা ধার দেন তিনি। কিন্তু, সেই টাকা বা তার বদলে ইট কোনোটাই তিনি ফেরত পাননি।

শেষনাথ টাকা দেয়ার জন্য যে চেক দিয়েছিলেন সেটিও নাকি বাউন্স করে বলে অ'ভিযোগ গঙ্গারামের।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, গঙ্গারাম সরকারের স্ত্রী জয়া সরকার করো’না আ'ক্রা'ন্ত হন। শেষনাথকে হোয়াটসঅ্যাপে স্ত্রীর করো’না রিপোর্ট পাঠিয়ে টাকা চান গঙ্গারাম। কিন্তু তাতেও টাকা না পাওয়ায় স্ত্রীকে সিএনজিচালিত অটোতে চড়িয়ে তিনি শেষনাথের বাড়ি যান। সেখানে অবস্থান করে টাকা দাবি করেন। ঘণ্টা দেড়েক অ’পেক্ষার পর টাকা আ'দায় করে বাড়ি যান গঙ্গারাম।

শেষনাথ সিং জানান, কয়েক মাস আগে তাকে টাকা দিয়েছিলেন গঙ্গারাম। কিন্তু করো’না পরিস্থিতিতে ইটভাটা বন্ধ থাকায় ব্যবসা ভালো যাচ্ছিল না। তাই বকেয়া মেটানো যাচ্ছিল না। সকালে ওই ব্যক্তি হোয়াটসঅ্যাপে নিজের স্ত্রীর ছবি দেখিয়ে ভয় দেখান। বলেন টাকা না দিলে করো’না আ'ক্রা'ন্ত স্ত্রীকে নিয়ে বাড়িতে আসবেন, আর করো’না ছড়িয়ে দেবেন। এই কথা বলার কিছুক্ষণের মধ্যেই স্ত্রীকে নিয়ে বাড়ি চলে আসেন। আর বাড়ির সকলকে ভয় দেখাতে থাকেন। বাধ্য হয়েই তার টাকা সব মিটিয়ে দেয়া হয়। তারপর তিনি এখান থেকে চলে যান।

ইটভাটা মালিকের অ'ভিযোগ, এইভাবে করো’না আ'ক্রা'ন্ত স্ত্রীকে বাড়ির ভিতরে ঢুকিয়ে দেয়ায়, তারা আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন। করো’নার রোগীকে সঙ্গে নিয়ে আরও রোগ সংক্রা'মিত করা হয়েছে। তিনি পু'লিশকে বি'ষয়টি জানাবেন। সূত্র : নিউজ১৮, আনন্দবাজার

Facebook Comments
Back to top button