সাবেক স্ত্রী’ সাফিয়ার আনভীরের সাথে পর’কী’য়ার খবর শারুনকে জানান মুনিয়া

বসুন্ধ’রা গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সায়েম সোবহান আনভীরের নাম আ’সামি হিসেবে এসেছে, সেই কলেজছা’ত্রী মোসারত জাহান মুনিয়ার সঙ্গে হোয়াটসঅ্যাপে কোনো কথা হয়নি বলে দাবি করেছেন হুইপ সামশুল হক চৌধুরীর ছে’লে শারুন চৌধুরী।

শারুন বলছেন, তার সাবেক স্ত্রী’র সঙ্গে আনভীরের স’ম্পর্ক গড়ে ওঠার খবর মোসারাত জাহান মুনিয়া গত বছর তাকে জানিয়েছিলেন তবে তা মেসেঞ্জারে। বিডিনিউজ
গত সোমবার ঢাকায় মুনিয়ার এবং তার বোনের করা মা’ম'লায় আনভীরকে প্র’রোচনার আ’সামি করার পর মুনিয়া-আনভীরের একটি ফোনালাপ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ার পাশাপাশি মুনিয়া-শারুনের হোয়াটসঅ্যাপে কথিত কথোপকথনের একটি স্ক্রিনশটও আসে।

এ বি'ষয়ে জানতে চাইলে শারুন বুধবার (২৮ এপ্রিল) বলেন, “হোয়াটসঅ্যাপে যে কথোপকথন ছড়ানো হচ্ছে তা ভু’য়া। এটি ফরেনসিক টেস্ট করলে পরিষ্কার হয়ে যাবে।”
তবে মুনিয়া গত বছর মেসেঞ্জারে তার সঙ্গে যোগাযোগ করে তার সাবেক স্ত্রী’র বি'ষয়ে কথা বলেছিলেন বলে জানান শারুন।

তিনি বলেন, “গত বছর আমা’র ফেসবুক মেসেঞ্জারে এক মে’য়ে আমা’র সাবেক স্ত্রী’ সাফিয়াকে নিয়ে ফোনে কথা বলতে চায়।আমি তাকে মেসেঞ্জারে মেসেজ দিতে বলি। পরে সে মেসেঞ্জারে বলেছিল, আমা’র স্ত্রী’র সাথে সায়েম সোবহান আনভীর প’র’কী’’’য়া করছে। তখন তাকে আমি জানিয়ে দিই যে বি'ষয়টি আমি জানি, এ ব্যাপারে আমা’র করার কিছু নেই। কেননা সে আমা’র সাবেক স্ত্রী’।”

শারুনের সঙ্গে ২০১৯ সালে তার স্ত্রী’র বিচ্ছেদ ঘটে।
শারুন বলেন, “আমাকে না জানিয়ে আনভীরের সাথে দেশের বাইরে ভ্রমণ করাসহ বিভিন্ন কারণে তাকে তালাক দেওয়া হয়।”
আওয়ামী লীগ সংসদ সদস্য সামশুল হক চৌধুরীর ছে’লে, চট্টগ্রাম চেম্বারের পরিচালক শারুন অ’ভিযোগ করেন, ‘কিছু’ মিডিয়া তার বি’রু'দ্ধে ‘প্রপাগান্ডা চালিয়ে তার ক্ষ'তি করার চে'ষ্টা করছে।

Facebook Comments
Back to top button